Home » আমার বরগুনা » পাথরঘাটা » পাথরঘাটায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

পাথরঘাটায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

ইমরান হোসাইন, পাথরঘাটা : বরগুনা পাথরঘাটার কালমেঘা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকন মো. সহিদের বিরুদ্ধে জেলেদের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জেলে তালিকায় এক জেলের নাম একাধিকবার ব্যবহার চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা জেলের মধ্যে চাল বিতরণের জন্য বিশেষ ভিজিএফ কর্মসূচির আওয়াতায় গত ২৫ মার্চ কালমেঘা ইউনিয়নের ৬৯০ জেলের মাঝে প্রতি মাসে ৪০ কেজি করে ২মাসে ৮০ কেজি চাল প্রদান করে সরকার। চাল বিতরণের তালিকা ও মাস্টাররোল ঘেটে দেখা গেছে, ওই ইউনিয়নের জেলেদের তালিকায় ৬৯০ জনের নাম রয়েছে। এর মধ্যে ১৩টি নাম দুইবার করে রয়েছে। ওই ১৩টি নামের অনুকুলে ২ হাজার ৮০ কেজি চাল তালিকায় রয়েছে, এর মধ্যে তাদেরকে বিতরণ করা হয়েছে ১ হাজার ৪০ কেজি। বাকি ১ হাজার ৪০ কেজি চাল বিতরণ করেননি চেয়ারম্যান।

আরো পড়ুন :  বরগুনার বিশিষ্ট সমাজসেবক ও রাজনীতিক মল্লিক আইয়ুবের ইন্তেকাল

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউপি সদস্য বলেন, আমার এলাকার জেলেরা ৮০ কেজি করে চাল পেয়েছেন। পরবর্তীতে ওই নামের ওপর কাউকে চাল দেয়া হয়েছে কি-না তা চেয়ারম্যান জানেন।

এ বিষয় কালমেঘা ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, মাস্টাররোলে একটু ভুল আছে, বিতরণে একটু অনিয়ম হলেও দুর্নীতি হয়নি। বাকি চাল রাখা হয়েছে, এগুলো জেলেদের দেয়া হবে। এতদিনেও কেন বিতরণ করা হয়নি তা জানতে চাইলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

দায়িত্বে থাকা সরকারী কর্মকর্তা ট্যাগ অফিসার রবিন্দ্রনাথ হাওলাদার বলেন, কালমেঘায় ওই সময় ৬৯০ জন একই ব্যক্তির নামে দুবার চাল দেয়ার সুযোগ নেই। চেয়ারম্যান যদি এমনটা করে থাকে তাহলে ভূল করেছে।

পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হুমায়ূন কবির বলেন, মাস্টাররোলে ৬৯০ জন জেলের তালিকা দেখা যায়। একই নাম দুইবার ব্যবহার করার বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন এটা আমার জানা নেই। যদি এরকম করে থাকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।