Home » আমার বরগুনা » বেতাগী » বরগুনায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক ইয়াবাসহ আটক

বরগুনায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক ইয়াবাসহ আটক

গোলাম কিবরিয়া, বরগুনা অনলাইন : বরগুনার বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাব রক্ষক মো. লুৎফর রহমান সোহাগকে বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতাল গেট থেকে ইয়াবাসহ আটক করেছে বেতাগী থানা পুলিশ। সোহাগ বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা নমুনা পরিবহন কাজে দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন।

বেতাগী থানা সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার এএসআই সাইফুল বেতাগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অভিযান চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে লুৎফর রহমান সোহাগ দৌড়ে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করে। এসময় তার সাথে থাকা ম্যানিব্যাগটি পড়ে গেলে এএসআই সাইফুল সেটি উদ্ধার করে। এসময় তার ম্যানিব্যাগ তল্লাশি করে ভিতরে থাকা ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। এরপর লুৎফর রহমানকে আটক করা হয়।

সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে ইয়াবা বিক্রির প্রস্তুতি নেয় লুৎফর রহমান। এসময় সংবাদ পেয়ে এএসআই সাইফুল ইসলাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে তাকে হাতেনাতে ধরলে লুৎফর এএসআই সাইফুলের সাথে বিষয়টি দফারফার চেষ্টা করে। এএসআই সাইফুল তাৎক্ষণিক লুৎফরকে থানায় না নিয়ে দুপুর পর্যন্ত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকায় অবস্থান করেন।

আরো পড়ুন :  বেড়েরধন নদীর সূর্যোদয়ের নৈসর্গিক দৃশ্য মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে

বেতাগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মচারীদের মধ্যে ঘটনাটি জানাজানি হলে সর্বত্র ছড়িয়ে পরে ঘটনাটি। পরে স্থানীয় গনমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতিতে দুপুর আড়াইটায় ওসি (তদন্ত) ফেরদৌস হোসেন ২পিস ইয়াবাসহ লুৎফুর রহমান সোহাগকে আটক করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্থানীয় জানান, ইতোপূর্বে সোহাগ মাদকসহ গ্রেপ্তার হয়ে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত হন। পরবর্তীতে বিশেষ ব্যবস্থায় চাকরিতে পুনর্বহাল হন। সোহাগ একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। মাদক ব্যাবসা করে নিয়মিত পুলিশকে অনুদান দিয়ে আসছে। আজ আটকের আগে প্যাকেটে ইয়াবা বিক্রির জন্য নিয়ে আসেন তিনি। ক্রেতা দেরি করে আসায় ধরা পরে। পুলিশের সহযোগিতায় ২পিস ইয়াবা রেখে বাকি সব গায়েব করা হয়।

তবে টাকার বিনিময়ে ধামাপাচা দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বেতাগী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, একরকম কোনো সংবাদ আমার কাছে নেই। আমি যখন খবর পাই তখন পুলিশ পাঠিয়েছি। পুলিশ গিয়ে তাকে মাদকসহ আটক করে। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরো পড়ুন :  বিভাগীয় নৃত্যে প্রথম বরগুনার নদী

এ বিষয়ে বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তেন মং ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।