Home » আমার বরগুনা » পাথরঘাটা » ফাইলবন্দী পাথরঘাটার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জাতীয়করণ

ফাইলবন্দী পাথরঘাটার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জাতীয়করণ

patharghata-gherao

দুই এমপির ডিও লেটারে বরগুনা জেলার পাথরঘাটায় একটি করে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জাতীয়করণ ফাইলবন্দী হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয় সম্মিলিত ছাত্র-ছাত্রী ঐক্য পরিষদ উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবনে অবস্থানরত বরগুনা-২ আসনের এমপি শওকত হাসানুর রহমানের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে।

এসময় শিক্ষার্থীরা জানান, ঝালকাঠি ও বরগুনা জেলার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাছিমা ফেরদৌসী চাইছেন তাদের পারিবারিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হাজী জালালউদ্দিন মহিলা কলেজ জাতীয়করণ হোক। আর বরগুনার-২ আসন বেতাগী-বামনা ও পাথরঘাটা উপজেলার সংসদ সদস্য শওকত হাসানুর রহমান রিমন চাইছেন পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয় জাতীয়করণ হোক।

শিক্ষার্থী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক রুহী আনান দানিয়াল জানান, বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রতিটি উপজেলা সদরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে মানসম্পন্ন একটি স্কুল ও একটি কলেজ বাছাই করে জেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে তথ্য চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরে বরগুনা জেলা শিক্ষা অফিসার শুকুমার চন্দ্র হালদারের মাধ্যমে বরগুনা-২ আসনের তিনটি উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তথ্য একই সাথে পাঠানো হয়। পরে বামনা ও বেতাগী উপজেলায় ৪টি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের গেজেট প্রকাশ করা হলেও পাথরঘাটা উপজেলায় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেরও গেজেট প্রকাশ করা হয়নি। এ কারণে পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নেমেছে।

আরো পড়ুন :  গণধর্ষণ মামলায় স্বাক্ষীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

এবিষয় বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয় জাতীয়করণে আমাদের চুড়ান্ত তালিকায় রয়েছে। পরে একই উপজেলার দুই এমপির দু’টি ডিউলেটার দেখে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ওই উপজেলার ফাইল আবার নতুন করে যাচাইবাচাই করছে।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাসানুর রহমান রিমন ঝালকাঠি ও বরগুনার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্যকে দায়ী করে বলেন, মহিলা সাংসদ নাছিমা ফেরদৌসী তার পারিবারিকভাবে প্রতিষ্ঠিত মহিলা কলেজটি জাতীয়করনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ডিও লেটার দেয়ায় পাথরঘাটা মহাবিদ্যালয়টি জাতীয়করণ ফাইলবন্দী হয়ে পড়েছে।

বাংলারচোখ